এই হতদরিদ্র বাবা বাদাম বিক্রি করেন, ছেলে শত শত কোটি টাকার মালিক

আমা’র পাশের মানুষটি দলিল লেখক গিয়াস উদ্দিনের হতদরিদ্র বাবা। বাদাম বিক্রি করেন। তার ছেলে শত শত কোটি টাকার মালিক। ঢাকাতে ১৪ টি বিল্ডিংসহ বেশ কয়েকটি গার্মেন্টস ফ্যাক্টরী রয়েছে। কিন্তু বাবা-মায়ের খবর নেয়না। তারা থাকে জীর্ণশীর্ণ কুটিরে। এই কোটিপতির এক ভাই দিনমজুর, আরেক ভাই ইলেট্রিশিয়ান।

গিয়াস উদ্দিন (এখন নামের শেষে চৌধুরী) কোটিপতি হলেও পেশায় মুলত দলিল লেখক। ভু’য়া, জাল দলিল করে সংখ্যালঘুদের জমিজমা লিখে নিয়েছেন গিয়াস। এছাড়া নিরীহ মানুষের শত শত বিঘা জমি জাল দলিলের মাধ্যমে এসিআই কোম্পানীর কাছে বিক্রি করে তিনি এখন প্রায় ৬ শ কোটি টাকার মালিক।

মালেয়শিয়ার পর এবার আমেরিকাতে সেকেন্ড হোম গড়তে আগামীকাল বিকেলের ফ্লাইটে আমেরিকা যাচ্ছেন। অথচ তার হত*ভাগ্য বাবা দিন এনে দিন খায়। মা বিনাচিকিৎসায় দিন কা’টায়। ছেলে কোনো খোঁজ খবর রাখেন না। ছেলের প্রাসাদে গেলে ‘দা’ নিয়ে বাবা-মাকে তাড়া করেন ছেলে আর তার বউ।

গিয়াসের অ’বৈধ সম্পদের রিপোর্ট করতে গেলে তার বাবার অনুরোধ -‘খা’রাপ হোক, সে আমা’র ছেলে। দয়া করে তার বি’রুদ্ধে রিপোর্ট করবেন না। না খেয়ে থাকলেও আমাদের কোনো অ’ভিযোগ নেই।’ কিন্তু আমি নিরুপায়। এই কুলাঙ্গারের কোনো ছাড় নাই। রিপোর্ট আমাকে করতেই হবে।